• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন
  • English English French French German German
ব্রেকিং নিউজ
বগুড়ায় ১ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক সম্রাট আসিক গ্রেফতার! নিরাপদ সড়ক চাই ,ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার উদ্যোগে সারাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে পার্বতীপুরে জাগো রংপুরের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত মানব নতুন কার্যনির্বাহী কমিটির অভিষেক ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠান। আপন এক্সপ্রেস কুরিয়ার এন্ড পার্সেল সার্ভিস লিঃ এর প্রধান কার্যালয়ের ফিতা কেটে উদ্বোধন করলেন ডঃ মির্জা জলিল ছেলে ‘হত্যা’র বিচারের দাবিতে বাবার সংবাদ সম্মেলন জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে থাকব ————‘লৌহমানব’ মোহাম্মদ আলী চৌধুরী লালমনিরহাটে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে লাখ টাকা জরিমানা বিএমএসএফ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হামলা, থানায় অভিযোগ, ৭ নেতাকর্মীকে অব্যাহতি টেকনো স্পার্ক ৮ প্রো’র ৪ জিবি ভার্সন এখন বাংলাদেশে

বহিস্কৃত নেতাদের দ্বারা চলছে বগুড়া জেলা বিএনপির করোনা হেল্প সেন্টার।

Reporter Name / ১৫৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশ : শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১

আরমান হোসেন ডলার (বিশেষ প্রতিনিধি) বগুড়াঃ

বহিস্কৃত মেডিকেল টেকনোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এম-ট্যাব) এর নেতাদের দিয়ে চলছে বগুড়া জেলা বিএনপি করোনা হেল্প সেন্টার। এ ব্যর্থতা কার কেন্দ্রীয় কমিটির না ডাক্তার অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ড্যাব) বগুড়া জেলা কমিটির।

সবচাইতে মজার বিষয় বগুড়া জেলা বিএনপির সিনিয়র নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা বলেন, তারা যে বহিষ্কার হয়েছে তাদের সম্পর্কে কিছুই জানেনা নেই তাদের।

অথচ ডাক্তার অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ড্যাব) বগুড়া জেলা কমিটি সভাপতি ডাঃ শাহ মোঃ শাজাহান আলী এবং সাধারণ সম্পাদক ডাঃ ইউনুস আলী স্যার এই বিষয়টা খুব ভালো করেই জানেন।

আরও মজার বিষয় যার কারণে তারা বহিষ্কার হয়েছে সেই ভদ্রলোক ই আবার তাদেরকে নিয়ে এসেছে কাজ করার জন্য এই ধরনের খবর ও রয়েছে।

এদিকে এই বহিষ্কারের বিষয় নিয়ে ড্যাবের সভাপতি ডাক্তার শাহজাহানের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করলে সে ফোন রিসিভ করেনি।

ড্যাবের সেক্রেটারি ডাঃ ইউনুস আলী সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, বহিষ্কার নেতা করোনা হেল্প সেন্টারে কাজ করছে সেটা তার জানা নেই। আর যদি করেও থাকা তবে সেটা সাংগঠনিক ভাবে অনিয়ম এবং বিশাল একটি অপরাধ।

এম-ট্যাবের কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব বিপ্লব-উজ্জামান বিপ্লব এবং যুগ্ম মহাসচিব দবিরউদ্দিন তুষারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা বহিষ্কারাদেশ সম্পর্কে সত্যতা স্বীকার করে এবং বলে কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা, জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের পরিচালক, ডাক্তার ফরহাদ হালিম ডোনার স্যারের নির্দেশে তাকে বহিষ্কার করা হয়। আর একজন বহিস্কৃত নেতা তখন এম-ট্যাবের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে পারে না। সে যদি এম-ট্যাব করতে চায় তাহলে তাকে নতুন করে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে ক্ষমা চেয়ে আবেদন করতে হবে। তারপর কেন্দ্রীয় কমিটি এবং জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ মিলে সিদ্ধান্ত নিবে। তারপরে তাকে সম্পৃক্ত করা হতে পারে কিন্তু সেটা অনেক সময়ে ব্যাপার।

এম-ট্যাবের বগুড়া জেলা আঞ্চলিক কমিটির উপদেষ্টা জনাব, মাহাবুব এবং ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জনাব ইয়াকুব আলী সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা এ বিষয়ে বিভিন্ন মতামত প্রকাশ করে তাদের সকলের একই কথা সংগঠনের যেখানে ২০-২৫ জন ছেলে পেলে আছে তাদেরকে কাজে না লাগিয়ে বহিস্কৃত নেতা কাজ করিয়ে নিচ্ছে ডাক্তার শাজাহান সাহেব। অথচ সেই প্রোগ্রামের শুরুতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেজার কোন খবর ছিল না। হঠাৎ করে ডাক্তার শাহজাহান সাহেব রেজাকে ডেকে নিয়ে এসে এম-ট্যাবের প্রতিনিধি হিসেবে জেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয় এবং সেখানকার কাজে সম্পৃক্ত করে দেয়। তারা আরো বলেন এভাবে যদি চলতে থাকে ভবিষ্যতে বিএনপি’র সাংগঠনিক অবস্থা প্রশ্নবিদ্ধ হবে এবং এম-ট্যাবের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হবে। যার ফলে বড় ধরনের গন্ডগোল হতে পারে।

তাই তারা মনে করে, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এম-ট্যাব) কেন্দ্রীয় কমিটি এবং বগুড়া জেলা কমিটি, ডাক্তার অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ড্যাব) বগুড়া জেলা কমিটি এবং বগুড়া জেলা বিএনপির কমিটি সিনিয়র নেতৃবৃন্দের উচিত সমস্যা গুলো চিহ্নিত করে অতি দ্রুত সমাধানের মাধ্যমে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়া।।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ