• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৫০ অপরাহ্ন
  • English English French French German German
ব্রেকিং নিউজ
বাংলাদেশের বাজারে টেকনো’র নতুন চমক স্পার্ক ৮ প্রো দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে মাসুদ আলম সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মওদুদ নির্বাচিত ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি সীমান্তে ৮ মাসে প্রায় ৬ কোটি টাকার মাদকসহ বিভিন্ন মালামাল আটক প্যারাসুট নারিকেল তেল-এর নতুন উৎসব প্যাক বাংলাদেশে ৩ জিবি’র স্পার্ক সেভেন স্মার্টফোন নিয়ে এলো টেকনো টেকনো ক্যামন ১৭ সিরিজ এখন দেশের সকল আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে বাজারে নিজেদের অবস্থানের সাথে মিল রেখে টেকনো’র নতুন স্লোগান – “স্টপ অ্যাট নাথিং” দিনাজপুরে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভবনের লিফট ও জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে মাতৃদুগ্ধ পান কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন। এন.ডি.এফ এর কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ ও নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারক লিপি প্রদান। দিনাজপুর পৌরসভার রাস্তাঘাট সংস্কার ও যানজট নিরসনের দাবীতে মানববন্ধন

নাটোরের লালপুরে খাদ্য কর্মকর্তার বাসভবন হতে ২শত বস্তা গম উদ্ধার

Reporter Name / ৩৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১

নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরের লালপুর উপজেলার গোপালপুর সরকারি খাদ্য গোডাউনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের সরকারী বাস ভবন থেকে ২০০বস্তা সরকারী গম উদ্ধার করা হয়েছে। এসব গম গুদামে না রেখে নিজ জিম্মায় সংরক্ষণ করে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এছাড়া গোডাউন কেন্দ্রিক নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (২৫ জুন) দুপুর ১টায় ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী আকতারের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে এসব গম উদ্ধার করা হয়৷ গমগুলো উদ্ধারের পর পুনরায় গুদামে মজুদ রাখা হয়েছে।

এদিকে, অভিযুক্ত ওসি এলএসডি রফিকুল ইসলাম জেলা খাদ্য কর্মকর্তার অনুমতি নিয়ে গুদামের বাইরে আলাদা ভবনে গম মজুদ করেছেন জানালেও তা অস্বীকার করেছেন জেলা খাদ্য কর্মকর্তা রবীন্দ্র লাল চাকমা। গুদামের বদলে নিজ জিম্মায় গম রাখার অনুমতিপত্র দেখতে চাইলে অভিযুক্ত রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরণ করেন। জেলা খাদ্য কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌছালে তিনি দ্রুত সটকে পড়েন।

খাদ্য গুদামে গম সরবরাহকারী কৃষক, নিয়মিত শ্রমিক ও স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, সরকার ধান ও চাল সংগ্রেহের মৌসুমে কৃষকদের নিকট থেকে খাদ্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করলেও কৃষকদের নানাভাবে হয়রানি করেন ওসি এলএসডি রফিকুল ইসলাম। সিন্ডিকেট করে নির্দিষ্ট কয়েকজনের কাছ থেকে ধান, গম কিনে প্রকৃত কৃষকদের শষ্যের আদ্রতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ফিরিয়ে দেন। গুদামে কর্মরত দীর্ঘদিনের শ্রমিকদের বঞ্চিত করে রাতের আঁধারে বাইরে থেকে শ্রমিক এনে লোড-আনলোডের কাজ করানোর পাশাপাশি নিয়মিত শ্রমিকদের ঠিকমতো মজুরি দেন না। নিজ জিম্মায় রাখা গমগুলোও তিনি রাতের আধারে বাইরে বিক্রি করে দেন।

ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী আকতার বলেন, শুক্রবার দুপুরে স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে গুদামে এসে পাশ্ববর্তী ভবনের একটি ঘর থেকে ২০০ বস্তা গম উদ্ধার করা হয়। গমগুলোর নমুনা সংগ্রহ করে গুদামজাত করা হয়েছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে পুরো বিষয়টি অবহিত করে তার বিরুদ্ধে দাপ্তরিক ব্যবস্থা নিতে জেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এবিষয়ে জেলা খাদ্য কর্মকর্তা রবীন্দ্র লাল চাকমা বলেন, ‘গুদামের বাইরে গম রাখতে হলে নিয়ম অনুযায়ী খাদ্য বিভাগকে অবহিত করে অনুমতিপত্র নিতে হয়। এ ক্ষেত্র আমাকে অবহিত করা বা কোন অনুমতি নেয়া হয়নি। বিষয়টি খাদ্য বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ